1. asmaakter99987@gmail.com : Asma Akter : Asma Akter
  2. jannatulsifa9486@gmail.com : BD NEWS 99 :
  3. ohanafariah8@gmail.com : Fariah Jalal Ohana : Fariah Jalal Ohana
  4. help.geniusplug@gmail.com : Geniusplug Technology : Geniusplug Technology
  5. jannatulparash123@yahoo.com : Jannat Parash : Jannat Parash
  6. jannatulsifa236@gmail.com : jannatul sifa : jannatul sifa
  7. kabirtanzim2@gmail.com : Kabir Mahmud : Kabir Mahmud
  8. jakia0702@gmail.com : Kuashabrita Usha :
  9. nilmubdiol@gmail.com : Md Mubdiul Islam : Md Mubdiul Islam
  10. mituakter54402@gmail.com : Mehreen Mitu :
  11. engr.romansarkar@gmail.com : romanbd :
  12. afrinsabrin2019@gmail.com : SABRIN AFRIN :
  13. jannatul.sifa@yahoo.com : Shahjadi Mukti :
  14. soyboliny@gmail.com : Shifat Afrin Semu : Shifat Afrin Semu
  15. suchonaislam23@gmail.com : Shuchona Islam :
  16. ummayjahan3@gmail.com : Tanzina Mim : Tazina MIm
বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৯:১৬ পূর্বাহ্ন

ব্রন থেকে মুক্তি দেবে যে খাবার গুলো আসুন জেনে নেই

  • প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, ১৮ জুন, ২০২০
  • ৫৪ বার দেখা হয়েছে

ব্রন থেকে মুক্তি দেবে যে খাবার গুলো ,  আসুন জেনে নেই সে খাবার গুলো সম্পর্কে । মসৃন, কমনীয় ও সুন্দর ত্বক কে না চায়! নিজেকে সুন্দর, সুশ্রী ও আকর্ষণীয় দেখাতে আমরা কতো কিছুই না করে থাকি।নামি দামি প্রসাধনি, বিশেষ বিশেষ ফেসপ্যাক ব্যবহার করি। পার্লারে নানা ধরনের ট্রিটমেন্টও নিয়ে থাকি। আবার আমরা অনেকেই বিশেষ ডায়েটও মেনে চলি। আমাদের এই সকল প্রচেষ্টাই বৃথা হয়ে যেতে পারে যদি কিনা ত্বকে ব্রন উঁকি দিয়ে উঠে। হঠাৎ ব্রনের আগমন যে কারোরই মন খারাপ করে দিতে পারে। 

ব্রন ও ব্রনের দাগ বা গর্তবিহীন ফ্রেশ মুখমণ্ডল সকলেরই কাম্য। আত্নবিশ্বাসে বাধা সৃষ্টি করতে পারে মুখের অবা’ঞ্চিত ব্রন। তবে আমাদের এটা জানতে হবে যে ত্বকে ব্রন হওয়াটা অস্বাভাবিক কোনো ঘটনা নয়। খুবই স্বাভাবিক ও সাধারণ ব্যাপার হলো ব্রন ওঠা। তবে অনেক সময় যদি ব্রন মাত্রা’তিরিক্ত ভাবে ছড়িয়ে পড়ে এবং কোনো কিছুতেই দূর না হয়, তাহলে সে কারনে জীবন তি’ক্ত ও অ’তিষ্ঠ হয়ে যায়। 

মানুষের ত্বকের বিভিন্ন স্তরে বিভিন্ন ধরনের গ্রন্থি থাকে। ত্বকের তেমনই একটি গ্রন্থি হলো ‘সেবাসিয়াস’ গ্রন্থি। এই ‘সেবাসিয়াস’ গ্রন্থি থেকে এক ধরনের তৈলাক্ত পদার্থ বের হয়। এই তৈলাক্ত পদার্থটির নাম হলো ‘সেবাম’। সেবাসিয়াস গ্রন্থির মুখ যদি কোনো কারনে ব্লক হয়ে গিয়ে সেবাম বাইরে বের হয়ে আসতে না পারে তখন সেটি গ্রন্থির ভেতরেই জমতে থাকে। এতে গ্রন্থি ফুলে উঠে। গ্রন্থি ফুলে ওঠাতে ত্বকের ওপর যে গোটা আমরা দেখতে পাই সেটাই হলো ব্রন। ব্রনে যদি জীবাণুর সংক্র’মণ হয় তাহলে সেখানে পুঁজ হয় আর তা ব্যাথার সৃষ্টি করে এবং লালচে হয়ে যায়। 

ব্রন হবার কোনো নির্দিষ্ট সময় নেই। তবে সাধারণত বয়োঃসন্ধি কালে এবং ২০ থেকে ৩০ বছর বয়সীদের ব্রন হবার প্রবণতা বেশি থাকে। বয়োঃসন্ধি কালে ছেলে মেয়েদের হরমোনাল পরিবর্তন এর কারনে ব্রন হয়। নারীদের গর্ভাবস্থায়ও ব্রন হতে পারে। সাধারণত টেস্টোস্টেরন, অ্যান্ড্রোজেন হরমোনের প্রভাবে ব্রনের সমস্যা দেখা দেয়। আবার গুরু’তর শারিরীক সমস্যা, যেমনঃ পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিনড্রোম বা কুশিং সিনড্রোম এর কারনেও ব্রন হতে পারে। এছাড়াও জেনেটিক কারনে, মানসিক চাপে, ভাই’রাস বা ব্যাক’টেরিয়ার সংক্র’মণের কারনে, খাবার হজম জনিত সমস্যা থাকলে ব্রন এর সমস্যা হতে পারে। 

ব্রন সমস্যা থেকে মুক্তি পাবার জন্য আমরা কতো কিছুই না করে থাকি। তবে আমরা যদি আমাদের খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আনি তাহলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। কিছু বিশেষ খাবার রয়েছে যেগুলো খেলে ব্রনের সমস্যা দূর হয়। 
আসুন এরকমই কিছু খাবার সম্পর্কে জেনে নেইঃ 

পাকা পেঁপে ব্রন দূর করতে অত্যন্ত চমৎকার ভূমিকা পালন করে। উজ্জ্বল কমলা রঙের পাকা পেঁপে আমাদের যে কারোরই লোভ লাগায়। পাকা পেঁপেতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন-এ রয়েছে। ভিটামিন-এ ত্বকের জন্য অত্যন্ত উপকারী। ভিটামিন-এ ছাড়াও পেঁপেতে আরো রয়েছে “প্যাপাইন” এবং ”কায়ম্যাপোপেইন” নামক এই দুইটি অত্যাবশকীয় এনজাইম। পেঁপের পুষ্টিগুন আমাদের ত্বককে উজ্জ্বল করে। ব্রনের দাগ দূর করতে সহায়তা করে। ত্বকের লোমকূপ বন্ধ হয়ে গেলে তা উন্মুক্ত কর‍তে সহায়তা করে। ত্বকের রোদে পোড়া ভাব দূর করে এবং ত্বকের রঙ এর ভারসাম্যতা বজায় রাখতে সহায়তা করে। 

ব্রন সমস্যা থেকে মুক্তি পাবার জন্য আপনাকে শসার আশ্রয় নিতেই হবে। কেনোনা শসাতে প্রচুর পরিমাণ পানি, ভিটামিন-এ, ভিটামিন-সি এবং ভিটামিন-ই রয়েছে। এছাড়াও রয়েছে অ্যামিনো এসিড। শসা ত্বকের রো’গ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং ত্বকের ব্যাক’টেরিয়া ধ্বংস করে। যার ফলে ত্বকের ব্রনের সমস্যা দূর হয়। শসার জুস খেলে ব্রন দূর হবার পাশাপাশি ত্বকও আরো উজ্জ্বল হয়। কমলা ভিটামিন-সি তে ভরপুর একটি ফল। ভিটামিন-সি ত্বকের সমস্যা দূর করতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। কমলালেবুতে ভিটামিন-সি এর পাশাপাশি অ্যান্টিঅক্সিডেন্টেও ভরপুর। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরের কোষ কলাকে সজীব করে এবং কোষ কলার মাত্রা বাড়ায়। ত্বকের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে এবং কোষ কলাকে সজীব রাখতে কমলা খেতে হবে। কমলা ব্রন দূর করতে অত্যন্ত কার্যকরী। ত্বক ভালো রাখার অন্যতম উপাদান হলো অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। আর এই অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এর অন্যতম উৎস হলো গ্রিন টি। গ্রিন টি দেহের দূষিত পদার্থকে শোধন করে এবং দেহ থেকে টক্সিক পদার্থ দূর করে ব্যাকটেরিয়া ধ্বংসের মাধ্যমে ব্রন কে প্রতিরোধ করে। 

অনেক সময় দেখা যায় ত্বকে ব্যাক’টেরিয়ার সংক্র’মণের কারনে ব্রনের সমস্যা সৃষ্টি হয়। ব্যাক’টেরিয়া ধ্বংস কর‍তে জিংক অত্যন্ত কার্যকরী। আর জিংক এর অত্যন্ত ভালো উৎস হলো মাশরুম। ব্যাকটেরিয়া জনিত ব্রন থেকে মুক্তি পাবার জন্য জিংক এর অন্যতম উৎস মাশরুম পরিমিত পরিমাণে আমাদের খেতে হবে। খুব কম মানুষই রয়েছেন যারা টমেটো অপছন্দ করে। প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন-সি রয়েছে টমেটোতে। টমেটোতে ভিটামিন-সি ছাড়াও “বায়োফ্লেভানয়েডস” রয়েছে। ত্বককে সুস্থ রাখতে এবং ত্বকের ব্রনের সমস্যা দূর করতে টমেটো অত্যন্ত কার্যকরী। তাছাড়া ব্রনের দাগ দূর করতেও টমেটো ব্যবহার করা হয়। 

দই আমাদের ত্বককে সুস্থ ও পরিস্কার রাখতে অত্যন্ত কার্যকরী। কেনোনা দই এ “ল্যাকটোব্যাসিলাস” নামক এক প্রকার উপকারী ব্যাক’টেরিয়া থাকে। এই ল্যাকটোব্যাসিলাস নামক ব্যাক’টেরিয়াটি শরীরের অন্যান্য ক্ষতি’কর ব্যাক’টেরিয়া ধ্বংস করে দেয়। যার ফলে ত্বকের ব্রন, ফোড়া বা ফুস্কুড়ি ইত্যাদি দূর হয়। ব্রনের সমস্যা সহ ত্বকের যে কোনো সমস্যা দূর করতে আপনাকে অবশ্যই প্রচুর পরিমাণ সবুজ ও তরতাজা শাক সবজি গ্রহণ করতে হবে। লাল শাক, ডাটা শাক, পালংশাক, করলা, লেটুস পাতা, বাঁধাকপি ইত্যাদি ব্রন দূর করতে সহায়তা করে। বাদামে ফ্যাট থাকার কারনে অনেকেই বাদাম খেতে চান না। কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা যে, বাদামে যে সমস্ত ফ্যাট বা ফ্যাটি এসিড রয়েছে সেগুলো শরীরের জন্য অত্যন্ত উপকারী। বাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা ব্রন নিরাময়ে অত্যন্ত কার্যকরী। মাছের তেল শরীরের জন্য অত্যন্ত উপকারী। মাছের তেলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। মাছের তেলে প্রচুর পরিমাণ ফ্যাটি এসিড ওমেগা -৩  ও  ওমেগা-৬  রয়েছে। এই ফ্যাটি এসিড অনেকাংশে ব্রন হবার প্রবণতা প্রতিরোধ করতে সক্ষম। 

আপনাকে প্রচুর পরিমাণ পানি পান করতেই কবে যদি কিনা আপনি ব্রন এর সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে চান। শরীরে পানি স্বল্পতা থেকেও ব্রন হয়ে থাকে। তাছাড়া প্রতিদিন ঘাম ও প্রস্রাবের সাথে শরীর থেকে পানি বের হয়ে যায়। সর্বনিম্ন ২ লিটার পানি দৈনিক প্রত্যেকেরই পান করা উচিৎ। বয়সভেদে সর্বোচ্চ ৩ থেকে ৪ লিটার পানি পান করা উচিৎ। শরীরের দূষিত পদার্থকে শোধন করতে পানি পান করতে হবে। 

সোশ্যাল মিডিয়া পোষ্টটি শেয়ার করুন।

এই ক্যাটাগরির আরও পোষ্ট
© All rights reserved © 2020 bdnews99.com