1. asmaakter99987@gmail.com : Asma Akter : Asma Akter
  2. jannatulsifa9486@gmail.com : BD NEWS 99 :
  3. ohanafariah8@gmail.com : Fariah Jalal Ohana : Fariah Jalal Ohana
  4. help.geniusplug@gmail.com : Geniusplug Technology : Geniusplug Technology
  5. jannatulparash123@yahoo.com : Jannat Parash : Jannat Parash
  6. jannatulsifa236@gmail.com : jannatul sifa : jannatul sifa
  7. kabirtanzim2@gmail.com : Kabir Mahmud : Kabir Mahmud
  8. jakia0702@gmail.com : Kuashabrita Usha :
  9. nilmubdiol@gmail.com : Md Mubdiul Islam : Md Mubdiul Islam
  10. mituakter54402@gmail.com : Mehreen Mitu :
  11. engr.romansarkar@gmail.com : romanbd :
  12. afrinsabrin2019@gmail.com : SABRIN AFRIN :
  13. jannatul.sifa@yahoo.com : Shahjadi Mukti :
  14. soyboliny@gmail.com : Shifat Afrin Semu : Shifat Afrin Semu
  15. suchonaislam23@gmail.com : Shuchona Islam :
  16. ummayjahan3@gmail.com : Tanzina Mim : Tazina MIm
বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৬:৩৪ পূর্বাহ্ন

করোনায় নারীর স্বাস্থ্য সচেতনতা

  • প্রকাশিতঃ সোমবার, ১১ মে, ২০২০
  • ২১ বার দেখা হয়েছে

করোনায় নারীর স্বাস্থ্য সচেতনতা নিয়ে করা যাবেনা অবহেলা । যদিও করোনার ভয়াবহতায় স্থবির হয়ে পড়েছে পুরো পৃথিবী। একই সাথে মানুষের জীবনেও নেমে এসেছে স্থবিরতা।সামাজিক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন এই জীবনের সাথে পরিচয় ছিল না মানবসভ্যতার। বদলে গেছে বেশিরভাগ মানুষের জীবনের রুটিন। এজন্য দুঃশ্চিন্তা, দূর্ভোগ, প্রিয়জনের সঙ্গহীন দূর্যোগের এই সময়ে শারীরিক সুস্থতার পাশাপাশি নিশ্চিত করা উচিত মানসিক স্বাস্থ্যও। 

বাংলাদেশের মানুষ মানসিক স্বাস্থ্যের ব্যাপারে চরম অসচেতন।  সবচেয়ে বেশি অসচেতন নারীরা স্বাস্থ্য সচেতনতায় । অথচ পুরুষের তুলনায় নারীরা মানসিক অসুস্থতায় বেশি ভোগেন।শারীরিক গঠন, মুড ডিসওর্ডার এবং পুষ্টির ঘাটতির কারণে পুরুষের তুলনায় নারীদের এই মানসিক স্বাস্থ্যের তারতম্য হয়ে থাকে। করোনার এই সময়ে প্রতি দশজন নারীর মধ্যে চারজন নারী মানসিক অসুস্থতায় ভুগছেন। এর অন্যতম কারণ সামাজিক বিচ্ছিন্নতা, বিষন্নতা এবং দুঃশ্চিন্তা। যেহেতু পরিবারের সব মানুষ এখন গৃহে অবস্থান করছেন এক্ষেত্রে গৃহের অতিরিক্ত কাজের চাপ এবং পারিবারিক কলহও মানসিক স্বাস্থ্যহীনতার অন্যতম একটি কারণ।

 এজন্য এখন নারীদের প্রয়োজন নিজের এবং নিজের মনের যত্ন নেওয়া এবং মানসিক সুস্থতা নিশ্চিত করা। মনে রাখতে হবে নিজেকে ভালবাসা, ভাল রাখা স্বার্থপরতা নয়। নিজের মন ভাল রাখতে পারলেই অপরকে ভাল রাখা যায় এবং ভালবাসা যায় কারণ মৃত মন থেকে ভালবাসা তৈরি হয় না। মনে রাখতে হবে দূর্যোগের সময় দুঃখ, ব্যথা, দুঃশ্চিতা, নিপীড়ন স্বাভাবিক। এজন্য দূর্যোগের মধ্যেও নিজের মনকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। তবে সবার মনের নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা এক রকম নয়।এজন্যই মানুষ ভেদে মানুষের মানসিক অসুস্থতা কিংবা অস্থিরতার প্রকাশভঙ্গি ভিন্ন। এসময় প্রতি মুহূর্তে একজন নারীর অনুভূতি পরিবর্তন হয়। মনের এই পরিবর্তনগুলোকে লক্ষ্য রাখতে হবে এবং সেগুলোকে মেনে নিতে হবে। এই দূর্যোগে নিজের মনকে সুস্থ রাখতে চাইলে নিচের নির্দেশনাগুলো মেনে চলা যেতে পারে- 

 নিজের শরীরের যত্ন নিন। নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার  খান। নিয়মিত ব্যায়াম করুন এবং পরিপূর্ণভাবে ঘুমান। অনিদ্রা এই মুহূর্তের অন্যতম একটি সমস্যা। এক্ষেত্রে ইউটিউবে বেশ ভাল কিছু স্লিপিং মেডিটেশন পাবেন সেগুলো মেনে চললে ভাল ফলাফল পাবেন।নিজের প্রিয় মানুষদের সাথে কথা বলুন। নিজের অনুভূতি, দুঃচিন্তা ভাগাভাগি করুন। সবার সাথে সুস্থ ও স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে তুলুন।নিজের জন্য দিনের কিছুটা সময় আলাদা করুন। তখন নিজের পছন্দের কাজগুলো করুন। বই পড়ুন, গান শুনুন, সাজগোছ করুন এবং নিজের কাজগুলো উপভোগ করুন। দুঃশ্চিন্তা করা কমান। কিছু ব্যাপার আছে যেগুলো আপনার নিয়ন্ত্রনের বাইরে সেসব ব্যাপার নিয়ে না ভেবে যেগুলো আপনার নিয়ন্ত্রণে আছে সেগুলো মেনে চলতে পারেন। যেমন নিজে এবং নিজের পরিবার করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে নিজেদের সুস্থতা নিশ্চিত করতে পারেন।

 দুঃসহ এবং মর্মান্তিক খবর থেকে দূরে থাকুন এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সব খবর বিশ্বাস করা থেকে বিরত থাকুন। কারণ একসময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেক বেশি গুজব ছড়াচ্ছে। যেহেতু আমরা একটি ক্রান্তিকাল পাড় করছি। এজন্য এ বিষয়ে নির্ভুল তথ্য জানার চেষ্টা করুন। সরকারি নির্দেশনা এবং স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে সঠিক ধারণা রাখুন এবং মেনে চলুন।অবশেষে বলতে চাই, যদি করোনার এই ক্রান্তিলগ্নে মানসিক অস্থিরতা আপনার ওপর অনেক বেশি প্রভাব ফেলে এবং সেটা আপনার দৈনন্দিন জীবনযাপনে প্রকট আকার ধারণ করে তাহলে অবশ্যই অনলাইনে ডাক্তার কিংবা মেন্টাল হেল্থ কাউন্সিলরের কাছ থেকে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা নিন। এবং দ্রুত স্বাভাবিক জীবনে ফেরার চেষ্টা করুন। কারণ আপনি সুস্থ থাকলে বিপদে নিজের এবং নিজের পরিবারকে পরিপূর্ণ সেবা দিতে পারবেন। সুস্থ থাকুন, ভাল থাকুন এবং নিরাপদে থাকুন।

সোশ্যাল মিডিয়া পোষ্টটি শেয়ার করুন।

এই ক্যাটাগরির আরও পোষ্ট
© All rights reserved © 2020 bdnews99.com