1. asmaakter99987@gmail.com : Asma Akter : Asma Akter
  2. jannatulsifa9486@gmail.com : BD NEWS 99 :
  3. ohanafariah8@gmail.com : Fariah Jalal Ohana : Fariah Jalal Ohana
  4. help.geniusplug@gmail.com : Geniusplug Technology : Geniusplug Technology
  5. jannatulparash123@yahoo.com : Jannat Parash : Jannat Parash
  6. jannatulsifa236@gmail.com : jannatul sifa : jannatul sifa
  7. kabirtanzim2@gmail.com : Kabir Mahmud : Kabir Mahmud
  8. jakia0702@gmail.com : Kuashabrita Usha :
  9. nilmubdiol@gmail.com : Md Mubdiul Islam : Md Mubdiul Islam
  10. mituakter54402@gmail.com : Mehreen Mitu :
  11. engr.romansarkar@gmail.com : romanbd :
  12. afrinsabrin2019@gmail.com : SABRIN AFRIN :
  13. jannatul.sifa@yahoo.com : Shahjadi Mukti :
  14. soyboliny@gmail.com : Shifat Afrin Semu : Shifat Afrin Semu
  15. suchonaislam23@gmail.com : Shuchona Islam :
  16. ummayjahan3@gmail.com : Tanzina Mim : Tazina MIm
বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৩২ পূর্বাহ্ন

ধনেপাতা খাচ্ছেন,নাকি নিজেদের মারাত্মক ক্ষতি করছেন

  • প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, ২১ মে, ২০২০
  • ২৭ বার দেখা হয়েছে

ধনেপাতা খাচ্ছেন,নাকি নিজেদের মারাত্মক ক্ষতি করছেন।ভর্তা,হালিম তরকারি,সালাদ বা যে কোন খাবার এর উপর একটু খানি ধনেপাতা দিলে দেখতে যেমন সুন্দর দেখায় তেমনি এর থেকে সুন্দর একটি গন্ধও বের হয়।প্রায় প্রতিটি মানুষই কম বেশি রান্নায় ধনেপাতা ব্যবহার করে থাকেন।কিন্তু অনেকেই জানেন না ধনেপাতার কিছুটা ঔষুধি গুণ থাকলেও এর অনেক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও রয়েছে।ধনের পাতার বৈজ্ঞানিক নাম হচ্ছে কোরিয়েন্ড্রাম সেটিভা।তরকারির স্বাদ বাড়ানোর জন্য ধনেপাতা ব্যবহার করা হলেও তা খুব নিরবে আমাদের ক্ষতি করে যাচ্ছে কিন্তু আমরা তা বুঝতেও পারছিনা।আসুন এবার ধনেপাতার খারাপ দিক গুলো জেনে নেয়া যাক।

ভ্রূণের ক্ষতিঃ শুনে অবাক হলেও অতিরিক্ত ধনেপাতা খাওয়া গর্ভকালীন সময়ে ভ্রূণের জন্য ক্ষতির কারণ হতে পারে। ধনেপাতাতে এমন কিছু উপাদান আছে যা নারীদের প্রজনন গ্রন্থির কার্যক্ষমতাকে কমিয়ে দেয়ার ক্ষমতা রাখে।প্রদাহজনিত সমস্যাঃ প্রদাহ জনিত সমস্যা হওয়া অতিরিক্ত ধনেপাতা খাওয়ার কারণে হয়ে থাকে।ধনেপাতার মধ্যে বিদ্যমান বিভিন্ন এসিডিক উপাদানের কারণে মুখে,ঠোঁটে,মাড়ি এবং গলাতে প্রদাহ দেখা দেয়।অ্যালার্জির সৃষ্টিঃএকটি নির্দষ্ট পরিমাণ ধনেপাতা সেবনের ফলে ধনেপাতার প্রটিন উপাদান শরীরে আইজিক নামক অ্যান্টিবডি তৈরি যা শরীরের বিভিন্ন রাসায়নিক উপাদানকে সমানভাবে বহন করতে সহায়তা করে।কিন্তু যখন সেই পরিমাণ ছাড়িয়ে বেশি পরিমাণ সেবন করলেই উপাদানগুলোর ভারসাম্য নষ্ট হয়।এতে করে শরীরে চুলকানি হয়,ফুলে যায়,জ্বালাপোড়া করে।

ডায়রিয়া,বেশি পরিমাণ ধনেপাতা খেলে ডায়রিয়া হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।এর ফলে ডিহাইড্রেশনও হয়ে থাকে।অল্প পরিমাণ ধনেপাতা পেটে সমস্যা দূর করে তাই অল্প পরিমাণে ধনেপাতা খাওয়া যেতে পারে।বুকে ব্যাথা, বলা হচ্ছে বেশি পরিমাণ ধনেপাতা খাওয়ার ফলে দ্বীর্ঘস্থায়ী বুকে ব্যাথা দেখা দিতে পারে।অতিরিক্ত ধনেপাতা খাওয়ার ফলে বুকে ব্যাথার মতো জটিল সমস্যা দেখা দেয়।নিম্ন রক্তচাপ,বেশি পরিমাণ ধনেপাতা হৃৎপিণ্ডের স্বাস্থ্য নষ্ট করে আর এর ফলস্বরূপ নিম্ন রক্তচাপের সৃষ্টি হয়।বিশেষজ্ঞরা বলছেন যাদের উচ্চরক্তচাপের সমস্যা আছে তারা যেনো ধনেপাতা খায় কিন্তু বেশি পরিমাণে খেলে আবার নিম্ন রক্তচাপের মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ত্বকের সংবেদনশীলতা,অতিরিক্ত ধনেপাতা সেবনের ফলে ত্বকের ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।সবুজ ধনেপাতাতে কিছু পরিমাণ অ্যাসিডিক উপাদান থাকে যা ত্বককে সংবেদনশীল করে কিন্তু মাত্রা ছাড়িয়ে গেলে সূর্য রশ্মি ত্বকের ভেতরে প্রবেশ করতে পারেনা যার ফলে ত্বক ভিটামিন কে থেকে বঞ্চিত হয়।পেট খারাপ,গবেষণায় দেখা যায় সপ্তাহে ২০০ এমএল ধনেপাতা খাওয়ার ফলে গ্যাসের ব্যাথা,পেট ফুলে যাওয়া,পেটে ব্যাথা,বমি এবং পাতলা পায়খানা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।লিভারের ক্ষতি,ধনেপাতাতে একধরনের উদ্ভিজ তেল থাকে যা শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ প্রত্যঙ্গকে অকেজো করে ফেলে। যার ফলে লিভারের কার্যক্ষমতা উপর ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে।শরীরে অতিরিক্ত পরিমাণ ধনেপাতার উপস্থিতির কারণে লিভারের ক্ষতি সাধিত হয়।
নিঃশ্বাস জনিত সমস্যাঃঅতিরিক্ত ধনেপাতা ফুসফুসে অ্যাজমা সৃষ্টি করে।এতে করে স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস এর ক্ষেত্রে বাধার সৃষ্টি হয়।এই কারণেই শ্বাসকষ্টের রোগীদের চিকিৎসকরা ধনেপাতা খেতে নিষেধ করেন।নিয়ম মেনে,পরিমাণ মতো যে কোন জিনিস খান সুস্থ থাকুন,আত্মীয় স্বজনদেরও সুস্থ রাখুন।এই ভয়াবহ অবস্থার সুস্থ থাকাটাই স্বার্থকতা।

সোশ্যাল মিডিয়া পোষ্টটি শেয়ার করুন।

এই ক্যাটাগরির আরও পোষ্ট
© All rights reserved © 2020 bdnews99.com